সিরাজগঞ্জের হত্যা মামলার পলাতক আসামি ঢাকায় গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক,ঢাকা

সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুরের চাঞ্চল্যকর স্ত্রী হত্যা মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব।

রোববার রাজধানীর দারুস সালাম এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত হলেন,পলাশ প্রামানিক।

রোববার ( ২ জুলাই) দুপুরে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন র‍্যাব-১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সিনিয়র সহকারী পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত মিডিয়া অফিসার) মো. নজমুল হক।

তিনি জানান, আসামি পলাশ প্রামানিক তার নিজ এলাকার বিভিন্ন লোকজন ও এনজিওর কাছ থেকে বিপুল পরিমান টাকা ঋণ নেয়। ঋণ নেয়া টাকা পরিশোধ করতে না পারায় প্রায় সময় এলাকার লোকজন আসামির স্ত্রীর (আনিজা খাতুন) নিকট তাদের পাওনা টাকা চাইতো। এরই মধ্যে আসামির স্ত্রী সৌদি আরব (বিদেশ) যাওয়ার জন্য পাসপোর্ট তৈরি করে এবং আসামির কিছু ধার দেনা পরিশোধও করে। গত ১৯/০৬/২০২৩ তারিখ আনুমানিক সকাল ০৯৩০ ঘটিকায় আসামী পলাশ টাকা দিতে না পারলে পাওনাদাররা আসামীকে গালিগালাজ করে। এরই জের ধরে একই তারিখে বিকাল সাড়ে ৩ টায় ঋণের টাকা পরিশোধ করা নিয়ে আসামী পলাশ এর সাথে আসামির স্ত্রীর ভিকটিম আনিজা খাতুন এর ঝগড়া বিবাদ হয়। একই তারিখ সন্ধা সাড়ে ৬ টায় আসামির ছেলে শান্ত বাড়ির দরজা তালাবদ্ধ অবস্থায় দেখে আশপাশে তার মাকে ডাকাডাকি করে। অনেক ডাকাডাকি করেও তার মাকে না পাওয়ায় আসামির ছেলে শান্ত তাদের পুরান বাড়ীতে গিয়ে তার চাচা ইমরানকে ডেকে নিয়ে আসে। শান্ত ও ইমরান আসামির বাড়িতে এসে দেখতে পায় যে, ঘর বাইরে থেকে তালা লাগানো। তারা তালা ভেংগে ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে ভিকটিম আনিজা খাতুন’কে গলায় ওড়না প্যাচানো অবস্থায় এবং কপালে আঘাতের চিহ্ন দেখতে পায়। তখন আসামির ছেলে শান্তর ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে ভিকটিম আনিজা খাতুন মৃত দেহ দেখে। পরবর্তীতে এ সংক্রান্তে ভিকটিমের ভাই মো. আসিফ হোসেন বাদী হয়ে সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর থানায় একটি হত্যা মামলা রুজু করে। এই ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে এবং বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে গুরুত্বের সাথে প্রচারিত হয়। এই চাঞ্চল্যকর হত্যাকান্ডের আসামীকে গ্রেফতারের জন্য র‌্যাব-১ ছায়া তদন্ত শুরু ও গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করে ।

রোববার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ডিএমপি, ঢাকার দারুস সালাম থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে উক্ত চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে ১ টি জাতীয় পরিচয়পত্র, ১ টি মোবাইল ফোন, ১ টি সীম কার্ড এবং নগদ ১৯০/- টাকা উদ্ধার করা হয।

তিনি আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে উক্ত হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে

গ্রেফতারকৃত আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আরোও জানা যায় যে, গত ১৯/০৬/২০২৩ তারিখ আনুমানিক বিকাল ১৫৩০ ঘটিকায় ঋণের টাকা পরিশোধ করা নিয়ে তার স্ত্রীর ভিকটিম আনিজা খাতুন এর সাথে ঝগড়া বিবাদ হয়। একই তারিখ আনুমানিক ১৬০০ ঘটিকায় ভিকটিমকে তার টিনশেটের বসত ঘরের ভিতর মারপিট করে এবং একপর্যায়ে ভিকটিমের ব্যবহৃত ওড়না দিয়ে গলায় প্যাচিয়ে শাশ্বত করে হত্যা করতঃ ঘরের দরজা বাহির থেকে তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায়।
গ্রেফতারকৃত আসামীকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

//এস//